আগের ম্যাচে ফিলিপাইনকে ১০-০ গোলে বিধ্বস্ত করার পর আত্মবিশ্বাসের পালে বাড়তি হাওয়া লেগেছিল। তার জোরেই পরের ম্যাচে স্বাগতিক মিয়ানমারকে ১-০ গোলে হারিয়ে দিল বাংলাদেশের মেয়েরা। মনিকা চাকমার একমাত্র গোলে মিয়ানমারকে তাদের মাঠেই হারিয়ে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের মূল পর্বে উঠেছে বাংলাদেশের মেয়েরা।এই জয়ে টানা দ্বিতীয়বারের মতো এএফসি অনূর্ধ্ব ১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্ব নিশ্চিত হলো বাঘিনীদের।

মিয়ানমারের মানডালার থিরি স্টেডিয়ামে শুক্রবার অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বের দ্বিতীয় রাউন্ডে স্বাগতিকদের মুখোমুখি হন মান্দা-মনিকারা। বাছাইয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডের ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে স্বাগতিক দর্শকদের হতাশ করে ১-০ গোলে হারায় বাংলাদেশ।

মিয়ানমারকে হারালো চীন শুক্রবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ফিলিপিন্সকে ৭-০ গোলে হারিয়ে মূল পর্বের টিকেট নিশ্চিত করে। এর আগের ম্যাচে ফিলিপিন্সকে ১০-০ গোলে হারিয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশ। আগামী রোববার শেষ ম্যাচে গ্রুপ সেরা হওয়ার লড়াইয়ে চীনের মুখোমুখি হবে দল।দুই ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে গ্রুপে বাংলাদেশের ওপরে আছে তারা।

১৪ মিনিটে অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে বল নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়লেও গায়ের সঙ্গে সেঁটে থাকা ডিফেন্ডারের জন্য ঠিকঠাক শট নিতে পারেননি তহুরা খাতুন, শট সোজা চলে যায় গোলরক্ষকের কাছে। ২৩ মিনিটে মনিকার শট ফেরান মিয়ানমার গোলরক্ষক।

গোলশূন্য প্রথমার্ধে এরপর আর তেমন কোনো আক্রমণ করতে পারেনি বাংলাদেশ। ৬৩ মিনিটে প্রতিপক্ষের কাছ থেকে বল নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে দুর্বল শটে দলের হতাশা বাড়ান আনুচিং মোগিনি।

৬৭ মিনিটে মনিকার দুর্দান্ত কর্ণার থেকেই সরাসরি গোলে এগিয়ে যায় বাংলাদেশ। ডান দিক থেকে নেওয়া এই মিডফিল্ডারের কর্নার বাঁক খেয়ে লাফিয়ে ওঠা গোলরক্ষকের গ্লাভসে ছুঁয়ে জালে জড়ায়। বাকিটা সময় এ গোল আগলে রেখে জয়ের উৎসব করে বাংলাদেশ।

বাছাইয়ের প্রথম পর্বে ৬ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ, চীন, লাওস, অস্ট্রেলিয়া, মিয়ানমার ও থাইল্যান্ড। সেরা দুই রানার্সআপ ভিয়েতনাম ও ফিলিপিন্স। তবে থাইল্যান্ড স্বাগতিক হিসেবে সরাসরি মূল পর্ব খেলবে বলে তাদের বদলে ওই গ্রুপ থেকে দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার সুযোগ মিলেছে ইরানের। এএফসির এবারের নিয়ম অনুযায়ী এই আট দল নিয়ে দুই গ্রুপে হচ্ছে দ্বিতীয় রাউন্ড। দুই গ্রুপের থেকে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দল যাবে থাইল্যান্ডে মূল পর্বে।

LEAVE A REPLY