দশ বছর পর ভারতের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জয় অস্ট্রেলিয়ার

কিছুদিন আগে এই অস্ট্রেলিয়াকেই তাদের ঘরের মাটিতে হারিয়ে এসেছিল ভারত।সেই ভারতকেই তাদের মাটিতেই দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করেই পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে খেলতে নেমেছিল অস্ট্রেলিয়া। আজ বুধবার দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে সিরিজের পঞ্চম ও শেষ ওয়ানডেতে ভারতকে ৩৫ রানে হারিয়ে ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিজেদের মাটিতে সিরিজ হারের মধুর প্রতিশোধ নিলো ম্যাক্সওয়েল-ফিঞ্চরা।

এই জয়ের ফলে দীর্ঘ ১০ বছর পর ভারতের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজের জয়ের স্বাদ পেল অজিরা।সেই যে ২০০৯ সালে রিকি পন্টিংয়ের অধীনে ৭ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটি ৪-২ ব্যবধানে জিতল অস্ট্রেলিয়া, এরপর দশ বছরে আরও তিনবার ভারত সফর করেও বিজয়ীর হাসি নিয়ে ওয়ানডে সিরিজ শেষ করতে পারেনি পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। অন্যদিকে ২০১৫ সালের পর এই প্রথম ঘরের মাঠে সিরিজ হারল কোহলিবাহিনী।

অথচ ওয়ানডে সিরিজ কী দাপটের সঙ্গেই শুরু করেছিল কোহলি-ধোনিরা। প্রথম ওয়ানডে ১০ বল ও ৬ উইকেট হাতে রেখে জিতে যায় ভারত। পরের ওয়ানডেতে বিরাট কোহলির সেঞ্চুরির পর বোলারদের নৈপূণ্যে জয় পায় ৮ রানে।

এরপরের গল্পটুকু অবশ্য শুধুই অস্ট্রেলিয়ার। তৃতীয় ওয়ানডেতে ৩১৩ রান করে অস্ট্রেলিয়া জয় পায় ৩২ রানে। অবশ্য বিরাট কোহলি ১২৩ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেও দলকে হারের হাত থেকে রক্ষা করতে পারেনি। চতুর্থ ওয়ানডেতে ভারত ৩৫৮ রান করেও জয় পায়নি। এই রান তাড়া করতে নেমে ১৩ বল ও ৪ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া।

দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় আজ বুধবার (১৩ মার্চ) সিরিজ নির্ধারনী ম্যাচে টসে জিতে অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক আরোন ফিঞ্চ ব্যাটিং এর সিদ্ধান্ত নেন। উদ্ভোদনী জুটিতেই শুভ সূচনা পায় অস্ট্রেলিয়া। ফিঞ্চ ২৭ করে আউট হলেও খাজা ১০০ রান করেন। ১০ টি ৪ এবং ২ টি ৬ এর মার মারেন এ ব্যাটসম্যান। এরপর ম্যাচের হাল ধরেন হ্যান্ডসকম্ব।তিনি ফিরে যান ৫২ রান করে।এরপর তাসের ঘরের মত ভেঙে পড়ে অজিরা।

রিচার্ডসন এর ২৯,টার্নারের ২০ এবং স্টোয়িন্স এর ২০ রানের উপর ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৭২ রান সংগ্রহ করে অস্ট্রেলিয়া।

তবে অস্ট্রেলিয়ার জয়ের ভিত তৈরি করে দেন ওপেনার উসমান খাজা। পুরো সিরিজেই দুর্দান্ত ফর্ম দেখানো খাজা এই ম্যাচেও সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন, যা এই সিরিজে তার দ্বিতীয়। এই সেঞ্চুরি করার পথে বেশ কয়েকটি রেকর্ডেও নাম লিখিয়েছেন তিনি।

এই নিয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে তিন বা তার বেশিবার ৯০-এর চেয়ে বেশি রান করার কীর্তিতে নাম লিখিয়েছেন তিনি। এর আগে ভারতের মাটিতে ৫০ ওভারের ফরম্যাটে চারবার ৯০-এর চেয়ে বেশি স্কোর করেছিলেন ডি ভিলিয়ার্স ও ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ভারতের বিপক্ষ চার বা তার বেশি ফিফটির রেকর্ড আছে ক্রিস গেইলের দখলেও।

ভারতের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে সর্বোচ্চ রানের মালিক এখন উসমান খাজা। এর আগে এই রেকর্ড ছিল কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের দখলে। এছাড়া ভারতের মাটিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডে সাবেক প্রোটিয়া অধিনায়ক ডি ভিলিয়ার্সকে পেছনে ফেলে দিয়েছেন তিনি।

পাঁচ ম্যাচে যথাক্রমে ৫০, ৩৮, ১০৪, ৯১ ও ১০০ রান মিলিয়ে মোট ৩৮৩ রান করেছেন খাজা। এই রান করার পথে তিনি ২০১৫ সালে গড়া ডি ভিলিয়ার্সের গড়া ৩৫৩ রানের রেকর্ড ভেঙেছেন তিনি। এছাড়া ভারতের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে উইলিয়ামসনের ৩৬১ রানের রেকর্ডও ছাড়িয়ে গেছেন।

ভারতের হয়ে ভুবেনেশ্বর কুমার ৩ টি এবং সামি নেন ২টি উইকেট।

২৭৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে বেশ ভালো শুরুই করে ভারত। ধাওয়ান ১২ রানে ফিরলেও রোহিত শর্মা দেখে শুনে খেলে অর্ধ শতক পূর্ন করেন। ৫৬ রান করে আউট হন জাম্পার বলে।

মিডেল অর্ডারে কেও দাড়াতেই পারেনি আজ। ক্যাপ্টেন কোহলী ২০,পান্ট ১৬,বিজয় শংকর ১৬ রান করে আউট হলে হারের শংকা জাগে ভারতীয় শিবিরে।

সেখান থেকে দলের হাল ধরেন কেদার জাদভ এবং ভুবেনেশ্বর কুমার। দুজন মিলে দলকে জয়ের বন্দরের দিকে টানতে থাকেন। কিন্তু জাদভ ৪৪ এবং কুমার ৪৬ রান করে আউট হলে আর সেটা সম্ভব হয়নি। মাত্র ২৩৭ রানেই গুটিয়ে যায় ভারতের ইনিংস।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে জাম্পা ৩ টি,কামিন্স রিচার্ডসন এবং স্টোয়িন্স নেন ২টি করে উইকেট।

স্কোরঃ
অস্ট্রেলিয়াঃ ২৭২/৯ ( খাজা ১০০,হ্যান্ডসকম্ব ৫২, কুমার ৪৮/৩)
ভারতঃ ২৩৭/১০ ( রোহিত ৫২,কুমার ৪৬, জাম্পা ৪৬/৩)

ফলাফলঃ অস্ট্রেলিয়া ৩৫ রানের জয়ী
ম্যাচ ও সিরিজঃ সেরা উসমান খাজা

LEAVE A REPLY