৭ রানে ৬ উইকেট কাইল জ্যামিসনের

 

কাইল জ্যামিসন নিউজিল্যান্ডের সুপার স্ম্যাশে ক্যান্টারবুরির হয়ে অকল্যান্ডের বিপক্ষে ৭ রানে ৬ উইকেট নিয়ে নিজের নতুন বছরটা শুরু করলেন রেকর্ড বুকে নাম তুলে । টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তৃতীয় সেরা বোলিংয়ের কীর্তি গড়েছেন নিউজিল্যান্ডের এই ফাস্ট বোলার। নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতায় যা সেরা ও সব মিলিয়ে যৌথভাবে তৃতীয় সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড।

মঙ্গলবার অকল্যান্ডে দিবারাত্রির এই ম্যাচে প্রথম তিন ওভারে মাত্র ৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট তুলে নেন জ্যামিসন। শেষ ওভার করতে এসে চার বলের মধ্যে নেন ৩ উইকেট! তার বোলিং ফিগার ৪-০-৭-৬।

তার বোলিং তোপে এক ওভার বাকি থাকতে ১১০ রানে গুটিয়ে যায় অকল্যান্ড।

জ্যামিসন স্পর্শ করেছেন লাসিথ মালিঙ্গাকে। ২০১২ সালে বিগ ব্যাশে মেলবোর্ন স্টার্সের হয়ে পার্থ স্কর্চার্সের বিপক্ষে ৭ রানে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন মালিঙ্গাও। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এই দুজনের চেয়ে সেরা বোলিং আছে আর দুজনের।

২০১৩ সালে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের হয়ে ত্রিনবাগো অ্যান্ড টোবাগো রেড স্টিলের বিপক্ষে ৬ রানে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান। ২০১১ সালে ইংল্যান্ডের ফ্রেন্ডস লাইফ টি-টোয়েন্টিতে সমারসেটের হয়ে গ্লামরগনের বিপক্ষে ৫ রানে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন ইংল্যান্ডের আরুল সুপিয়াহ।

টি-টোয়েন্টিতে নিউজিল্যান্ডের কোনো বোলারের আগের সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড ছিল ইশ সোধির। ২০১৭ সালে বিগ ব্যাশে অ্যাডিলেডের হয়ে ১১ রানে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। সেটি ছাড়িয়ে গেলেন ২৪ বছর বয়সি জ্যামিসন।

আর নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি প্রতিযোগিতায় আগের সেরা বোলিং ছিল যৌথভাবে ইয়ান বাটলার ও বেন লাফলিনের, দুজন যথাক্রমে ওটাগো ও নর্দান ডিসট্রিক্টের হয়ে ২৮ রানে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন।

LEAVE A REPLY