আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের মালিক দেশের সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। কিছুদিন আগেও তিনি তিন ফরম্যাটেই সর্বোচ্চ ইনিংসের মালিক ছিলে। কিন্তু নিউজিল্যান্ড সফরে টেস্টে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের দখলটা নিয়ে নেয় তিন ফরম্যাটের বিশ্বের সেরা অল-রাউন্ডা ও টাইগারদের টি-২০ এর অধিনায়ক সাকিব। তামিমের সর্বোচ্চ ইনিংসের তালিকাটা আরো এক যায়গায় ছিল। ঘরোয়া লিস্ট ‘এ’ (৫০ ওভারের ম্যাচ) ক্রিকেটেও তিনি ছিলেন সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের মালিক । এইতো মোহামেডানের হয়ে মাত্র কয়েকদিন আগেই ১৫৭ রানের ইনিংসটা খেলে গিয়েছিলেন তিনি।

 

 

কিন্তু তামিমের ঘরোয়া লীগের সেই সর্বোচ্চ রেকর্ড নিজের করে নিলেন রকিবুল । চলমান ডিপিএলে দারুণ ছন্দে রয়েছেন রকিবুল। ব্যাট হাতে নিয়মিতই রান পাচ্ছেন তিনি। তবে সোমবার বিকেএসপিতে তাণ্ডব বইয়ে দেন রকিবুল হাসান। ‘লিস্ট এ’ ম্যাচে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের সর্বোচ্চ দুটি ইনিংসের মালিক ছিলেন তামিম ইকবাল। সোমবার তামিমকে ছাড়িয়ে রেকর্ড দখলে নেন রকিবুল হাসান।

 

ঢাকা ডার্বিতে আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলার পথে তামিমকে ছাড়িয়ে যান মোহামেডানের তারকা ব্যাটসম্যান। তবে কপাল খারাপই বলা যায় রকিবুলের। মাত্র ১০ রানের জন্য ডাবল সেঞ্চুরি করতে পারলেন না তিনি। লিস্ট এ’ ম্যাচে বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যান এর আগে ১৬০ এর কোটাও স্পর্শ করতে পারেননি।

 

বিকেএসপির-৪ নম্বর মাঠে আবাহনীর বিপক্ষে ৪৯তম ওভারের শেষ বলে চার হাঁকিয়ে ১৯০ রানে পৌঁছেন রকিবুল। ৫০তম ওভারের প্রথম বলে সিঙ্গেল নিয়ে তাকে স্ট্রাইক দেন কামরুল ইসলাম রাব্বি। তবে কাজী অনিকের করা দ্বিতীয় বলে মনন শর্মাকে ক্যাচ দিয়ে রকিবুল সাজঘরে ফিরে গেলে ডাবল সেঞ্চুরি মিসের হতাশায় পুড়তে হয় তাকে।

 

ডাবল সেঞ্চুরি মিস হলেও গর্ব করার মতো এক ইনিংসই খেললেন রকিবুল। পাঁচ নম্বরে নেমে ১৩৮ বলে ১৭টি চার ও ১০টি ছক্কার সাহায্যে ১৯০ রানের অনবদ্য ইনিংস উপহার দেন তিনি। চলতি ডিপিএলে ১৫৭ রানের দারুণ ইনিংস খেলে লিস্ট এ ম্যাচে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের ইনিংস খেলার রেকর্ড গড়েছিলেন তামিম ইকবাল। এদিন তাকে ছাড়িয়ে চূড়ায় বসেন রকিবুল।

 

 

তামিম ১৫৭ রানের ইনিংসা খেলেছিলেন মোহামেডানের অধিনায়ক হিসেবে। রকিবুলও ১৯০ রানের ইনিংসটা খেললেন মোহামেডানের অধিনায়ক হিসেবে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য জাতীয় দলের হয়ে বিদেশ সফরে যাওয়ার কারণে তামিমের পরিবর্তে মোহামেডানের অধিনায়ক এখন রকিবুল হাসানই।

মজার বিষয় হলো, ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটেও এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের মালিক রকিবুল হাসানই। প্রথম শ্রেণিতে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে প্রথম এবং একমাত্র ট্রিপল সেঞ্চুরির মালিক রকিবুল। ২০০৭ সালে জাতীয় ক্রিকেট লিগে বরিশালের হয়ে সিলেটের বিপক্ষে অপরাজিত ৩১৩ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি।

এবার তিনি লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটেও সর্বোচ্চ রানের মালিক হয়ে গেলেন এবং নিজেকে এমন এক জায়গায় নিয়ে গেলেন, যেটাকে খুব সহজে কেউ ছুঁতে পারবে কি না সন্দেহ। আরেকটু সময় কিংবা বল পেলে হয়তো ডাবল সেঞ্চুরিটা করে ফেলতে পারতেন তিনি; কিন্তু দলকে জেতানোর চিন্তা করতে গিয়ে শেষ ওভারে আউট হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। ১৩৮ বলে খেলা ১৯০ রানের ইনিংসটি সাজিয়েছিলেন তিনি ১৭টি বাউন্ডারি আর ১০টি ছক্কায়।

বাংলাদেশের ঘরোয়া লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটি ছিল শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যান চামারা কাপুগেদারার। তিনি খেলেছিলেন ১৬১ রানের ইনিংস। রকিবুল তামিম এবং কাপুগেদারা- এই দু’জনের রেকর্ডই গুঁড়িয়ে দিলেন।

LEAVE A REPLY