চলমান ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে শুক্রবার ডাবলিনে বল হাতে মুস্তাফিজ ও ব্যাট হাতে সৌম্যর নৈপুণ্যে স্বাগতিক আয়াল্যান্ডকে ৮ উইকেটের বড় এবং নিজেদের প্রথম জয় ছিনিয়ে নিয়েছে মাশরাফির নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ।

টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় টাইগার দল পতি মাশরাফি।আইরিশরা প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ম্যাচের শুরুতেই ধাক্কা খায়। স্কোরবোর্ডে কোনো রান যোগ করার আগেই মোস্তাফিজের বলে সাব্বিরে হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান পল স্টার্লিং। দলীয় ৩৭ রানের মাথায় মোসাদ্দেক হোসেনের কাছে শিকার করেন আইরিশ অধিনায়ক উইলিয়াম পোটারফিল্ডক। তবে এরপর উইকেটে কামড় মেরে খেলতে থাকেন ওপেনার এড জয়েস। যদিও বিপদজনক হয়ে ওঠার আগেই তাকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান অভিষিক্ত সানজামুল ইসলাম। তার আগে জয়েসের ব্যাট থেকে আসে ৪৬ রান।

তার বিদায়ের পরই মূলত ম্যাচের খেই হারিয়ে ফেলে স্বাগতিকরা। বাংলাদেশি বোলারদের অগ্নিঝরা বোলিংয়ে একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে আয়ারল্যান্ড। শেষপর্যন্ত ৪৬.৩ ওভার খেলে ১৮১ রানেই থামে দলটি। বাংলাদেশের পক্ষে মুস্তাফিজ ৪টি,মাশরাফি ও অভিষেক হওয়া সানজামুল ২ টি করে এবং সাকিব ও মোসাদ্দেক ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

আইরিশদের দেওয়া ১৮১ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। তামিম হাফসেঞ্চুরি থেকে ৩ রান দূরে থেকে ফিরেন দলীয় ৯৫ রানে, যদিও তাতে দলের জয়ে প্রভাব পড়েনি। টানা দ্বিতীয় অর্ধশতক হাঁকানো সৌম্যর ব্যাট থেকে আসে অনবদ্য ৮৭ রানের অপরাজিত ইনিংস। সাব্বির ৩৫ রান করে আউট হলে সৌম্যকে নিয়ে জয় দিয়েই ম্যাচের ইতি ঘটান মুশফিকুর রহিম। ফলে ১৩৭ বল ও ৮ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় টাইগাররা।

ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান।

বাংলাদেশ দল: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), মুশফিকুর রহীম, তামিম ইকবাল, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, রুবেল হোসেন, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মোস্তাফিজুর রহমান, মোসাদ্দেক হেসেন, সানজামুল ইসলাম।

আয়ারল্যান্ড দল: পল স্টারলিং, উইলিয়াল পোর্টারফিল্ড, এড জয়েস, নিয়াল ও ব্রেইন, এন্ড্রু বালবিরনি, গেরি উইলসন, কেভিন ও ব্রেইন, জর্জ ডকরেল, বেরি ম্যাককার্থি, টিম মুরতাঘ ও পেটার চেস।

LEAVE A REPLY