“ছেলেরা সব স্মার্ট হয়ে যাচ্ছে, ভালোই।” চিটাগং ভাইকিংস ও রংপুর রাইডার্সের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলন করে ফিরে যাওয়ার পথে শুভাশীষর আক্রমণাত্বকভাবে তেড়ে আসার নিয়ে এভাবেই সাংবাদিকদের সামনে আক্ষেপ প্রকাশ করেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। অবশ্য সংবাদ সম্মেলনে উল্টো শুভাশীষের কাছেই তার সরি বলা উচিত ছিল বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

বুধবার চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে রংপুর রাইডার্সের তখন ১৭ ওভার চলছিল। শুভাশীষ দারুণ এক ইয়র্কার করলেন, ঠেকালেন ব্যাটসম্যান মাশরাফি। নিজের বলে ফিল্ডিং করেই বল মাশরাফির দিকে ছুড়ে মারতে উদ্যত হয় শুভাশীষ। তখন মাশরাফি হাত ইশারা করে বললেন, ‘ফিরে যা’।

ঠিক তখনই তেলেবেগুনে জ্বলে উঠলেন শুভাশীষ। তিনি আক্রমণাত্বভাবে তেড়ে গেলেন মাশরাফির দিকে। মাশরাফির অবাক দৃষ্টিতে তার দিকে তাকিয়ে থাকে। শুভাশীষ তখনও থামে না। সতীর্থরা তাকে থামাতে চাইলেও তিনি তখনও হাত-পা ছুড়ে হুংকার দিয়ে চলেছেন। মাশরাফি তখনও তার দিকে তাকিয়ে আছে!

ক্রিকেটে এমন ঘটনা অনেক দেখা গেলেও এক্ষেত্রে কারণ ছাড়াই খেপে গেলেন শুভাশিস, আর এটিতেই বিস্ময় জেগেছে অনেকের মধ্যে। ইতোমধ্যে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুভাশীষের কাণ্ড নিয়ে বেশ সমালোচনা শুরু হয়ে গেছে।

বিষয়টি মারশাফি সংবাদ সম্মেলনে আসলে অবধারিতভাবেই শুরুতে এই প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। এ বিষয়ে তিনি বলেন, “ঘটনা যা ছিল, তা সিরিয়াস কিছু নয়। ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে এ রকম হয়। সিরিয়াস কিছু নয়। আমি মনে করি, আই শুড সে সরি টু হিম। আমারই সরি বলা উচিত। ক্রিকেটেরই অংশ। হয়ে থাকে এমন। ওর জায়গা থেকে হয়ত ঠিকই আছে। সে জিততে চায়, আমিও জিততে চাই।”

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, “যেহেতু সে আমার ছোট, আমার আরেকটু মাথা ঠাণ্ডা রাখলে ভালো হতো। সিরিয়াস কিছু হয়নি অবশ্যই। আমি জানি না, ওর কি করা উচিত ছিল। কিন্তু সিনিয়র হিসেবে আমার আরেকটু শান্ত থাকলে ভালো হতো।”

সূত্রঃজাগো বাংলা

LEAVE A REPLY